স্থানীয় আমবাগান দিয়ে যাওয়ার সময় চমকে উঠলেন কৃষকের দল

 হক জাফর ইমাম(মালদা) চার দিন নিখোঁজ থাকার পর স্থানীয় আমবাগান থেকে উদ্ধার করা হলো দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্রীর ঝুলন্ত মৃতদেহ। ঘটনাটি ঘটেছে ইংরেজবাজার থানার নিয়ামতপুর এলাকার আমগাছি গ্রামে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে বৃহস্পতিবার ভোরে স্থানীয় বাসিন্দারা নিখোঁজ ছাত্রীর ঝুলন্ত মৃত দেহ দেখতে পান। এরপর খবর দেওয়া হয় পুলিশকে। করবে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ এন্ড হাসপাতালের মর্গে পাঠান।

নিখোঁজ মৃত ছাত্রীর বাবা নিজামুল শেখের অভিযোগ তাদের মেয়েকে ধর্ষণ করে খুন করার পর গাছে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। ঘটনায় মৃত ছাত্রীর বাবা মালদা ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন। অভিযোগ পেয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে মালদা ইংরেজবাজার থানার পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত ছাত্রীর নাম মনোয়ারা খাতুন (১৮) মালদা মিলকি এলাকার ভর্তিটাড়ি হাইস্কুলের দ্বাদশ শ্রেণীতে পাঠরত ছিল । গত রবিবার থেকে ওই ছাত্রী নিখোঁজ ছিল বলে পরিবারের অভিযোগ। বৃহস্পতিবার সকালে আমগাছি এলাকার একটি বাগান দিয়ে কৃষি কাজ করার জন্য জমিতে যাচ্ছিলেন কয়েকজন কৃষক। তারাই প্রথমে ওই ছাত্রীর দেহটি আম গাছের ডালে গলায় ফাঁস লাগানো অবস্থায় ঝুলতে দেখেন ।

এরপরই এলাকায় শোরগোল পড়ে যায়।মৃত ছাত্রীর বাবা নিজামুল শেখ জানিয়েছেন, গৃহশিক্ষকের কাছে যাচ্ছে বলে রবিবার বিকালে বাড়ি থেকে বেরিয়ে ছিল মেয়ে মানোয়ারা । এরপর সে আর বাড়ি ফিরে আসে নি। ওর কাছে থাকা মোবাইলটিতেও যোগাযোগ করা যায় নি। সোমবার এই ঘটনার ব্যাপারে ইংরেজবাজার থানায় অভিযোগ দায়ের করি । তারপরই মেয়ের মৃতদেহটি উদ্ধার হয়েছে। অভিযোগ মানোয়ারাকে কেউ বা কারা ধর্ষণ করার পর শ্বাসরোধ করে খুন করেছে। এরপরই তাকে একটি আম গাছের ডালে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে। পুরো ঘটনায় দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবি জানিয়েছেন স্থানীয় গ্রামবাসীরা।

ইংরেজবাজার থানার আইসি পূর্ণেন্দু কুন্ডু জানিয়েছেন , এক ছাত্রীর রহস্যজনক অবস্থায় ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পরই মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here