জঙ্গি হাফিজের গ্রেপ্তারি নিয়ে মুখোমুখি বসতে চলছেন পাক – মার্কিন প্রধানমন্ত্রী

‘‘জঙ্গি নেতা হাফিজ সইদকে গ্রেপ্তার করেছে পাকিস্তান ঠিকই, তবে তা নেহাতই লোক দেখানো ছাড়া আর কিছুই না৷’’ ইমরান সরকারের বীরুদ্ধে শুক্রবার এমনই বার্তা দিল ট্রাম্প প্রশাসন৷ কটাক্ষের সুরে ট্রাম্পঘনিষ্ঠ আধিকারিক জানালেন, ‘‘অতীতের দিকে চোখ রাখলেই আমরা দেখতে পাব, আগেও এই ঘটনা ঘটেছে৷ তবে এবার আমরা এর বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা চাই৷ আমরা আশা করব, পাকিস্তান যথাযথ ভাবে বিষয়টির মোকাবিলা করবে৷’’ যখন এ কথা বলছেন, তার মানে কয়েকদিনের মধ্যেই মার্কিন প্রেসিডেন্টের মুখোমুখি হবেন পাক প্রধানমন্ত্রী৷ ফলে ইসলামাবাদ সম্পর্কে ওয়াশিংটনের এই মনোভাব, বৈঠকের আগেই ইমরান খানকে যথেষ্ট চাপে রাখবে বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞরা৷

এবার প্রথম নয়, অতীত ঘাটলে দেখা যাবে মুম্বই হামলার মাস্টারমাইন্ড হাফিজ সইদকে ২০০১ থেকে এখনও পর্যন্ত মোট সাতবার গ্রেপ্তার করেছে পাক পুলিশ৷ তবে এটুকুই! প্রত্যেকবারই জেলের মধ্যে বহাল তবিয়তে দিন কাটিয়েছেন তিনি, ভিভিআইপি ট্রিটমেন্টে বিলাসবহুল জীবপযাপন করেছেন তিনি, তারপর নিয়মমাফিক মিলেছে রেহাই৷ এ দিনের বক্তব্যে সন্ত্রাসবাদের প্রতি পাকিস্তানের এই দ্বিচারিতার দিকেই ইঙ্গিত করেন ট্রাম্প প্রশাসনের ওই আধিকারিক সাফ জানান, ‘‘আমরা চোখ বন্ধ করে নেই৷ কোনও ঘোরের মধ্যেও নেই৷ ইতিহাস সম্পর্কে আমাদের সম্যক জ্ঞান রয়েছে৷ খোলা চোখে আমরা বিষয়টা স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি৷ আগেও হাফিজ সইদ গ্রেপ্তার হয়েছে৷ কিন্তু তাতেও লস্করের কাজকর্মে কোনও প্রভাব পড়েনি৷ সে জন্যই এবার আমরা কড়া পদক্ষেপ দেখতে চাইছি৷ এবং আমরা সমগ্র বিষয়টি নজরে রাখছি৷’’

প্রসঙ্গত, পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পর এই প্রথম ডোনাল্ড ট্রাম্পের সঙ্গে বৈঠক করবেন ইমরান খান৷ সূত্রের খবর, আগামী ২১ জুলাই তিনদিনের মার্কিন সফরে যাচ্ছেন পাক প্রধানমন্ত্রী৷ যে বৈঠকের দিকে চেয়ে রয়েছে নয়াদিল্লিও৷ ভারতের আশা, এই বৈঠক থেকে সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তান কড়া বার্তা দেবেন ডোনাল্ড ট্রাম্প৷ আমেরিকা, ফ্রান্স, ইংল্যান্ড-সহ অন্যান্যদের সহায়তায় ইতিমধ্যেই জঙ্গি মাসুদ আজহারকে আন্তর্জাতিক জঙ্গির তকমা দিয়েছে রাষ্ট্রসংঘ৷ এই পরিস্থিতিতে, সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তান সম্পর্কে মার্কিন প্রশাসনের এই মন্তব্য, আমেরিকা সফরের আগে পাক প্রধানমন্ত্রীকে চাপে রাখবে বলেই মত বিশেষজ্ঞদের৷

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here