মুখ্যমন্ত্রীর হাতে উদ্বোধন দেওয়ালী মেলার! মায়ের প্রধান প্রসাদ পেঁড়া তৈরিতে ব্যস্ত দোকানিরা

নিজেস্ব প্রতিনিধি(উদয়পুর) মাতাবাড়ির পেঁড়া সারা দেশে খ্যাত। স্বাদে গন্ধে অতুলনীয় এই পেড়া এককথায় অমৃত। সামনেই দীপাবলি উৎসব। আর এই দীপাবলি উৎসব উপলক্ষে একান্ন পিঠের এক পীঠ উদয়পুরের মাতা ত্রিপুরা সুন্দরী মন্দিরে বসে উওর পূর্ব ভারতের সর্ব বৃহৎ দেওয়ালী মেলা ও উৎসব । মাতা ত্রিপুরা সুন্দরীর কাছে ভক্তরা পেড়া দিয়েই ভোগ নিবেদন করে থাকেন। মায়ের প্রধান প্রসাদ হচ্ছে এই পেঁড়াই। এই দেওয়ালী মেলায় দেশের বিভিন্ন প্রান্তের পাশাপাশি প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশের অগনিত ধর্ম প্রান মানুষ ও সাধু সন্ন্যাসীরাও আসেন এই মাতাবাড়িতে। এইবারও তার ব্যতিক্রম হবে না।

এইবার রাজ্যে পালা বদল হয়ে বিজেপি সরকার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই মেলায় থাকবে একটা আলাদা আমেজ ও উন্মাদনা। যার জন্য প্রস্তুতিও চলছে জোরকদমে। রাজ্যে নতুন সরকার প্রতিষ্ঠিত হবার পর গঠিত হয়েছে মাতাবাড়ি মন্দির উন্নয়ন ট্রাস্ট। আর এই ট্রাস্ট এর চেয়ারম্যান হয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। স্বাভাবিক ভাবেই এইবার দেওয়ালী মেলার প্রস্তুতি চলছে জোরকদমে এবং প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে অনেক আগে থেকেই। মায়ের মন্দির সহ গোটা মন্দির চত্ত্বর কে নতুন রঙে রাঙিয়ে তোলা সহ আলোক সজ্জায় সাজিয়ে তোলার কাজ চলছে জোরকদমে। দেওয়ালী মেলাকে সুন্দর ভাবে সম্পন্ন করতে ইতিমধ্যেই বেশ কয়েকবার সম্পন্ন হয়েছে প্রস্তুতি বৈঠক। অনান্য বারের ন্যায় এইবার মেলায় লোক সমাগম অনেকটাই বেশি হবে বলে ধারনা করছেন সকলে। আগামী ছয় নভেম্বর বিকাল চারটায় এইবারের দেওয়ালী মেলার উদ্বোধন করবেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব। এছাড়াও উপস্থিত থাকবেন আরও অনেক বিশিষ্ট জনেরা।

তাই হাতে সময় আর বেশি নেই। তাই দেওয়ালী মেলাকে সামনে রেখে অনান্য বারের ন্যায় এইবারও পেঁড়া বানাতে ব্যস্ত মাতাবাড়ি পেঁড়া দোকানিরা। দোকানে দোকানে চলছে চরম ব্যস্ততা। দুধ পাকিয়ে ক্ষীর বানিয়ে পেঁড়া বানাতে হাত লাগাচ্ছেন দোকানের মালিক থেকে কর্মচারী সকলে। চাহিদা অনুযায়ী এই দেওয়ালী মেলাকে সামনে রেখে অনান্য বারের ন্যায় এইবারও কয়েক হাজার কেজি পেঁড়ার যোগান দিতে দিন রাত খেঁটে যাচ্ছেন দোকানদাররা। এইবারারও পেঁড়ার বেচা বিক্রি ভালোই হবে সেই আশাতেই প্রহর গুনছেন দোকানদারেরা। কথায় আছে অন্য কোথাও কেউ যতই দুধ ক্ষীর দিয়ে পেঁড়া প্রস্তুত করুক না কেন মাতাবাড়ির পেঁড়ার মতো এই স্বাদ ও সুগন্ধ কেউ করতে পারে না। সকলের বিশ্বাস ও আস্থা এইখানে মায়ের অলৌকিক কিছু রয়েছে যার ফলে হাজার চেষ্টা করলেও মাতাবাড়ির ন্যায় কেউ কোথাও কোনও দিন বানাতে পারেনা। সকলের বিশ্বাস মা ত্রিপুরা সুন্দরী এইখানে সাক্ষাত এবং জাগ্রত আছেন যার ফলে মাতাবাড়িতে তৈরি পেঁড়ার গুনই মানে আলাদা যেটা অন্য কোথাও করা অসাধ্য ও অসম্ভব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here